কোর্স কারিকুলাম

রিহ্যাব ট্রেনিং ইনস্টিটিউট

রিয়েল এস্টেট এ্যান্ড হাউজিং এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ(রিহ্যাব)এদেশের বেসরকারি আবাসন সেক্টরে একমাত্র প্রতিনিধিত্বকারী শীর্ষ বাণিজ্য সংগঠন। সামাজিক দায়বদ্ধতার অংশ হিসাবে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করছে।এরই ধারাবাহিকতায় দেশের নির্মাণ শিল্পের জন্য দক্ষ জনশক্তি তৈরীর লক্ষ্যে রিহ্যাব ট্রেনিং ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠা করেছে । দেশে ও বিদেশে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত দক্ষ জনশক্তির বিপুল চাহিদা আছে । প্রশিক্ষণ আমাদের জনশক্তিকে দক্ষ করে তুলে আর দক্ষ জনশক্তির শ্রমমূল্য সংগত কারণে বেশি হয়ে থাকে। প্রবাসে কর্মরত বাংলাদেশিদের বাৎসরিক রেমিটেন্সের পরিমাণ প্রায় ১৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার (সূত্র-বি.আই.ডি.এস-২০১৬)। যা দিন দিন আরও বৃদ্ধি পাচ্ছে। দক্ষ জনশক্তি বৈদেশিক মুদ্রা  অর্জনের ক্ষেত্রে অধিকতর গতির সঞ্চার করেছে। বেকারত্বের অভিশাপ মুক্ত উন্নত জীবন গড়তে হলে বাস্তব কারিগরি প্রশিক্ষণের বিকল্প নেই। রিহ্যাব ট্রেনিং ইনস্টিটিউট সে লক্ষ্যে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এ পরিকল্পনা বাংলাদেশের বিকাশমান অর্থনীতি ও আন্তর্জাতিক শ্রমবাজারের চাহিদারই প্রতিফলন মাত্র। শিক্ষা জাতীয় জীবনে উন্নয়নের পূর্বশর্ত । আর দ্রুত পরিবর্তনশীল বিশ্বের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা  করে বাংলাদেশকে উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য প্রয়োজন সুশিক্ষিত জনশক্তি । আধুনিক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিগত উৎকর্ষের এ যুগে একুশ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় টিকে থাকতে হলে আমাদের জনশক্তিকে জনসম্পদে পরিণত করতে হবে ।

এ বিষয়টি  লক্ষ্য করে জাতীয় স্বার্থে রিহ্যাব ৫টি বিষয়ের উপর বাস্তব কাজের প্রশিক্ষণ দেয়ার উদ্দেশ্যে ২০১৫ সালে ঢাকার পান্থপখে রিহ্যাব ট্রেনিং ইনস্টিটিউট স্থাপন করে । অভিজ্ঞ প্রশিক্ষক মন্ডলী দ্বারা সুন্দর পরিবেশে অত্যন্ত নিবিড় পরিচর্যায় ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে কলমে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে । বর্তমানে বৃহত্তর পরিসরে উন্নত প্রশিক্ষণের লক্ষ্যে প্রশিক্ষণ কেন্দ্র ২১৯, মাজার রোড, মিরপুরে এর কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে ।  রিহ্যাব ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের বিদ্যমান ট্রেডসমূহ হলো

যথা: ১. ইলেকট্রিক্যাল ইনস্টলেশন এ্যান্ড মেনটিন্যান্স

২. প্লাম্বিং এ্যান্ড পাইপ ফিটিংস

৩. ম্যাশন

৪. রড বাইন্ডিং এ্যান্ড ফেব্রিকেশন

৫. টাইলস এ্যান্ড মার্বেল ওয়ার্কস

এসব কর্মসূচিতে ভর্তির যোগ্যতা ও সময়:

(১) বয়স কমপক্ষে ১৫-৪৫ বছর হতে হবে।
(২) কমপক্ষে ৫ম শ্রেণী পর্যন্ত লেখাপড়া থাকতে হবে।তবে ইলেকট্রিক্যাল , টাইলস্ ও মার্বেল ওয়ার্কস ট্রেডে শিক্ষাগত যোগ্যতা কমপক্ষে ৮ম শ্রেণী পাশ হতে হবে।
(৩)প্রতিটি কোর্স ৩ মাসে সম্পন্ন হবে। হাতে কলমে শিক্ষাদান শেষে রিহ্যাব এর বিভিন্ন সদস্য প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন প্রজেক্টে মিস্ত্রি বা সাব কন্ট্রাক্টর হিসেবে কাজে নিযুক্ত করার চেষ্টা করা হবে।
(৪)প্রশিক্ষণ কোর্স শেষে সার্টিফিকেট প্রদান করা হবে।

 

রিহ্যাব ট্রেনিং ইনস্টিটিউট বাংলাদেশের কারিগরি শিক্ষাবোর্ড কর্তৃক অনুমোদিত। ৩ মাসের বেসিক ট্রেনিং কর্মসূচির পাশাপাশি উচ্চ প্রশিক্ষণ যেমন: সাইট সুপারভাইজার, ভূমিকম্প কাঠামো নিরাপত্তা বিষয়ক কর্মশালা এবং ইলেকট্রিক্যাল ও সিভিল ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের ইন্ডাষ্ট্রিয়াল এ্যাটাসমেন্ট করানো হয় । প্রশিক্ষণ শেষে ছাত্র-ছাত্রীদের সনদপত্র দেয়া হয় এবং চাকুরী প্রাপ্তিতে সহায়তা করা হয় । নিম্নে ট্রেড ভিত্তিক কর্মরত ছাত্র-ছাত্রীদের স্থির চিত্র দেওয়া হলো ।

১. ইলেকট্রিক্যাল ট্রেডের ব্যবহারিক কার্যক্রমের স্থির চিত্র

৩. ম্যাশনরী  ট্রেডের ব্যবহারিক কার্যক্রমের চিত্র

৫. টাইলস এ্যান্ড মার্বেল ওয়ার্কস ট্রেডের ব্যবহারিক কার্যক্রমের স্থির চিত্র

২. প্লাম্বিং এ্যান্ড পাইপ ফিটিংস ট্রেডের ব্যবহারিক কার্যক্রমের স্থির

৪. রড বাইন্ডিং এ্যান্ড ফেব্রিকেশন ট্রেডের স্থির চিত্র   

৬. রিহ্যাব ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের সনদপত্র বিতরণ অনুষ্ঠানের চিত্র

সুপারভাইজর প্রশিক্ষণঃ

নির্মাণ সাইটের কাজ পরিদর্শন করা ও সাইট পরিচালনায় দক্ষতা বৃ্দ্ধি্র জন্য নিম্নোক্ত প্রশিক্ষণ দেয়া হবেঃ

ক)  জুনিয়র সুপারভাইজার নির্মাণ সহকারীঃ শিক্ষাগত যোগ্যতা এস.এস.সি, বয়স কমপক্ষে ১৮ বছর , ৩ মাসের কোর্স । প্রতি মাসের জন্য টিউশন ফি ৩০০০(তিন হাজার) টাকা বা যখন যা নির্ধারণ করে । নির্মাণ কাজে পরিদর্শন করার দক্ষতা বৃদ্ধির প্রশিক্ষণ ।

খ) সিনিয়র সুপারভাইজার/ সাইট সুপারভাইজারঃশিক্ষাগত যোগ্যতা এস.এস.সি পাশ বয়স কমপক্ষে ১৮ বছর ,৬ মাসের কোর্স। প্রতি মাসের জন্য টিউশন ফি ৩০০০(তিন হাজার) টাকা বা যখন যা নির্ধারণ করে। নির্মাণ কাজে পরিদর্শন করার ও নির্মাণ সাইট পরিচালনার বিষয়ে দক্ষতা বৃদ্ধির প্রশিক্ষণ ।

প্রকল্প ব্যবস্থাপক প্রশিক্ষণঃ

শিক্ষাগত যোগ্যতা কমপক্ষে ডিপ্লোমা/ডিগ্রী বা সমমান, বয়স কমপক্ষে ২১ বছর , ১ মাসের কোর্স। যে কোন প্রকল্প ব্যবস্থাপনায় দক্ষতা অর্জন করার জন্য প্রশিক্ষণ । এক বা একাধিক নির্মাণ সাইট পরিচালনা করার দক্ষতা অর্জনের কারিকুলামে প্রশিক্ষণ । টিউশন ফি ৫০০০(পাঁচ হাজার) টাকা ।

 

উচ্চতর ব্যবস্থাপক প্রশিক্ষণ:

যেকোন মা্ধ্যমিক বা উচ্চতর ব্যবস্থাপনায় সুনির্দিষ্ট বিষয়ে শর্ট কোর্স । ৩ দিনের বা যেভাবে নির্ধারণ হয় প্রশিক্ষণ কোর্স বা কর্মশালা । ব্যবসা পরিচালনার কৌশল ও ব্যবস্থাপনা বিষয় ও কর্মশালা আকারে এ প্রশিক্ষণ দেয়া হয় । সাইট সিকিউরিটি , ডিজাইন ও কন্সট্রাকশনে ভূমিকম্প বিবেচনা করার কর্মশালার ব্যবস্থা রয়েছে । যে কোন পর্যায়ের ব্যবস্থাপক, প্রকৌশলী ও স্থপতিরা অংশ নিতে পারবেন । এর বিষয় কারিকুলামে ও ফি পরে যথাসময়ে জানানো হবে ।

 

ইন্ডাষ্ট্রিয়াল এ্যাটাচমেন্ট:

ইহা মুলতঃ সিভিল ও ইলেকট্রিক্যাল ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার ৮ম পর্বের ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য নির্ধারিত । বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষাবোর্ড কর্তৃক নির্ধারিত সময়ে পরিচালিত হয় । রিহ্যাব ট্রেনিং ইনস্টিটিউটে আগত ছাত্র-ছাত্রীদের তাত্ত্বিক আলোচনার পাশাপাশী নিজ হাতে কাজ করা প্রাক্বলিক হিসাব (ESTIMATE) , ডিজাইন তৈরী করণ পরিশেষে সরজমিনে কন্সট্রাকশন সাইটে তা অবলোকন করা । সপ্তাহে ৬ দিনের মধ্যে  ৩ দিন সাইট ভিজিটে নেয়া হয় । একটি হাইরাইজ বিল্ডিং এর ফাউন্ডেশন হতে শুরু করে ফিনিশিং কাজ গুলোর ধারাবাহিকভাবে তাত্ত্বিক ও সাইট পরিদর্শনের মাধ্যমে শেখানো হয় ।

 

ইলেকট্রিক্যাল ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের জন্য মোটর কন্ট্রোল সার্কিট তৈরী করণ যেমন – ডাইরেক্ট অন লাইন ষ্টারটার, ষ্টার-ডেল্টা ষ্টারটার, ফরোয়ার্ড এন্ড রিভার্স ষ্টারটার তৈরী করণ, তাদের কার্য্যাবলী, ফুল লোড কারেন্ট ক্যালকুলেশন ওভারলোড সেটিং হাতে কলমে শিখানো হয় । তাছাড়া পাওয়ার ষ্টেশন,সাব-ষ্টেশন পরিচালনা, মেইনটেন্যান্স ও তাদের সমগ্র প্রটেকশনস্কীমের কার্য্যাবলী ও সেটিং ক্যালকুলেশন শিখানো হয় । পরিশেষে পাওয়ার ষ্টেশন, সাব-ষ্টেশন ভিজিটে নেয়া হয় । শিক্ষকদের সার্বিক সহায়তার কারণে ছাত্র-ছাত্রীগণ সম্যক জ্ঞান অর্জনে সক্ষম হয় । প্রশিক্ষণ শেষে শিক্ষার্থীরা ২-৩ বছরের অভিজ্ঞতা সম্পন্ন প্রকৌশলীদের সমপর্যায়ের দক্ষতা অর্জন করেন । এখানে প্রশিক্ষণ ফি প্রযোজ্য । রিহ্যাব ট্রেনিং ইনস্টিটিউটে প্রশিক্ষণ প্রাপ্তদের আনুষ্ঠানিক ভাবে  রিহ্যাবের নিজস্ব সনদপত্র প্রদান করা হয় । রিহ্যাবের সনদধারীদের উক্ত সেক্টরে চাকুরি প্রাপ্তিতে অগ্রাধিকার দেওয়া হয় ।

 

প্রশিক্ষণ সূচি:

সাধারণতঃ ৫(পাঁচ)টি সেশনে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি করা হয়

ক) স্প্রীং সেশন   (Spring Session )   – জানুয়ারী হতে মার্চ মাস।

খ) সামার সেশন  (Summer Session) – এপ্রিল হতে জুন মাস।

গ) উইন্টার সেশন  (Winter Session)   – জুলাই হতে সেপ্টেম্বর মাস।

গ) ফল সেশন     (Fall Session)    – অক্টোবর হতে ডিসেম্বর মাস।

 

মূল্যায়ন পদ্ধতি

ক) কমপক্ষে ৮০% ক্লাসে উপস্থিত থাকতে হবে ।

খ) জিপিএ-৫ এর ভিত্তিতে

১ . গ্রেট এ+ জিপিএ  ৪

২. গ্রেট এ   জিপিএ  ৩.১-৩.৯

৩. গ্রেট বি  জিপিএ  ২.৬-৩.০

৪. গ্রেট সি  জিপিএ  ২.১-২.৫

৫. গ্রেট ডি  জিপিএ  ২.০

সকল বিষয়ে গ্রেড এর গড়

 

গ) লিখিত ও ব্যবহারিক নম্বর প্রতি বিষয়ে

১. গ্রেড এ+ (৫)৮০-১০০ নম্বর

২. গ্রেড এ  (৪) ৭০-৭৯ নম্বর

৩. গ্রেড বি (৩) ৬০-৬৯ নম্বর

৪. গ্রেড সি  (২) ৫০-৫৯ নম্বর

৫. গ্রেড ডি  (১) ৪০-৪৯ নম্বর

চূড়ান্ত ফলাফলের ভিত্তিতে এ্যাসেসমেন্ট এ্যান্ড সার্টিফিকেশন কমিটির সুপারিশে ছাত্রের পাশ করানো চূড়ান্তকরণ ও সার্টিফিকেট প্রদান করা হয় ।

 

প্রশিক্ষণের সময়সূচী:

ক) সপ্তাহে ৬ দিন ক্লাস বা অধ্যক্ষ যেভাবে নির্ধারণ করেন ।

খ) ডে শিফট, সকাল  ৮.৩০ টা থেকে বিকাল ২.৩০ টার মধ্যে যেকোন সময় ক্লাস ।

গ) কোন ছাত্র/প্রশিক্ষণার্থীদের যাতায়াত ভাতা বা নাস্তা/ খাবার দেয়া হয় না। কোন পোশাক পরিচ্ছেদ দেয়া হয় না, থাকার ব্যবস্থা প্রশিক্ষণার্থীকে নিজ দায়িত্ব করতে হবে । ভবিষ্যতে এসব বিষয়ে কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত নিলে জানানো হবে |